পদ্মাসেতু দুর্নীতির রহস্য উন্মোচিত হোক

১৭/০২/২০১৭ ১:০৪ পূর্বাহ্ণ০ commentsViews: 8

পদ্মাসেতু নির্মাণে দুর্নীতির অভিযোগ নিয়ে পানি অনেক ঘোলা হয়েছে। দেশ-বিদেশে সরকার ও রাষ্ট্রের ভাবমূর্তি প্রশ্নবিদ্ধ করা হয়েছে। জেল খেটেছেন, ৰতিগ্রস্ত হয়েছেন মন্ত্রী ও পদস’ সরকারি কর্মকর্তাবৃন্দ। ঋণদাতা সংস’া বিশ্বব্যাংক অর্থায়ন বন্ধ করে দেয়ায় পদ্মাসেতু প্রকল্পের বাস্তবায়ন পিছিয়ে যায়, নিজস্ব অর্থে প্রকল্প বাস্তবায়নে আর্থিক চাপ সহ্য করতে হয়েছে সরকারকে। বিষয়টিকে রাজনৈতিক হাতিয়ারে পরিণত করার প্রয়াসও ছিল চোখে পড়ার মত। তবে দুর্নীতির অভিযোগ দুদক খারিজ করার পর সম্প্রতি কানাডার আদালতে দায়েরকৃত মামলাও খারিজ হয়ে যাওয়ায় এখন দাবি উঠেছে দুর্নীতির এই মিথ্যা গল্প তৈরির রহস্য উদঘাটিত হোক। বিশ্বব্যাংকের বির্বদ্ধে মামলা ও ৰতিপূরণ আদায়ের পদৰেপ নেওয়া হোক। নেপথ্যের নায়কদের খুঁজে বের করে আইনের সম্মুখীন করা হোক। উচ্চ আদালতও বিষয়টি নিয়ে র্বল জারি করেছেন।
দুর্নীতির কথিত অভিযোগে পদ্মাসেতু নির্মাণ প্রকল্পে প্রতিশ্র্বত অর্থায়নের সিদ্ধান্ত থেকে বিশ্বব্যাংকের সরে যাওয়ার ঘটনা দেশ-বিদেশে কী ধরনের তোলপাড় সৃষ্টি করেছিল সেটা ভুলে যাওয়ার নয়। সাড়ে তিন বছর আগের সেই ঘটনা নিয়ে মিডিয়ার ফলাও প্রচার রাষ্ট্র ও সরকারকে বিব্রতকর অবস’ায় ফেললেও শেষ পর্যন্ত তা সামলিয়ে ওঠা গেছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দৃঢ়তায় সরকার নিজস্ব অর্থায়নের সিদ্ধান্ত নিয়ে পরিসি’তি মোকাবেলায় সৰম হলেও চলে যায় মূল্যবান সময়। ফলে খরচ বেড়ে যাওয়ায় যোগান দিতে হয় বিশাল পরিমাণ অর্থ। এখন স্বপ্নের পদ্মাসেতু বাস্তবেই দৃশম্যান।
সফলভাবে পরিসি’তি সামাল দেয়া গেলেও এর পেছনে কে বা কারা হাত খেলিয়েছেন, কাদের ইন্ধন কাজ করেছে সেটা কখনই চাপা থাকেনি। এখন বিদেশি আদালতের রায়ে দুর্নীতির অভিযোগ খারিজ হওয়ায় নেপথ্যের কুশিলবদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। রাজনৈতিক মহলসহ সমাজের বিভিন্ন স্তর থেকে বিশেষ করে জাতীয় সংসদও এই দাবিতে সরব হয়ে উঠেছে। দেশের বৃহত্তর স্বার্থে এবং ভবিষ্যতে যাতে কেউ এ ধরনের দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়ে সাহসী না হয় তা নিশ্চিত করতে দেশবাসীও এ ৰেত্রে দৃষ্টান্ত স’াপনকারী পদৰেপ দেখতে চায়।
পদ্মাসেতু নিয়ে দুর্নীতির মিথ্যা গল্প তৈরি করে যারা ফায়দা লুটতে চেয়েছিল আমরা তাদের খুঁজে বের করতে আইন অনুযায়ী কমিটি বা কমিশন গঠন করে দোষীদের বিচারের মুখোমুখি করার বিষয়ে দেয়া উচ্চ আদালতের রায় বাস্তবায়নের অপেৰায় রইলাম। অপরাধী যেই হোক তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তিই এখন সবার দাবি।

Leave a Reply