সাংবাদিক শিমুল হত্যা মামলায় মেয়র মিরুসহ ৬ জনের ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর

১৪/০২/২০১৭ ১:০৬ পূর্বাহ্ণ০ commentsViews: 45

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি: শাহজাদপুরে দৈনিক সমকাল পত্রিকার স’ানীয় প্রতিনিধি আব্দুল হাকিম শিমুল হত্যা মামলার প্রধান আসামি পৌরসভার মেয়র হালিমুল হক মিরুসহ ৬ জন আসামিকে ৫ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছে শাহজাদপুর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত। অপর আসামিরা হলেন, কে এম নাছির উদ্দিন, আলমগীর হোসেন, নাজমুল খাঁ, আরশাদ ভূঁইয়া ও জহির উদ্দিন শেখ।
সোমবার সকাল ৯ টার দিকে পুলিশ, র‌্যাব ও ডিবি’র কড়া প্রহরায় মিরুসহ অন্য আসামিদের সিরাজগঞ্জ জেলা কারাগার থেকে শাহজাদপুর আদালতে আনা হয়। এ সময় পুলিশ, র‌্যাব ও ডিবি’র সমন্বয়ে গোটা আদালত চত্বরে নিরাপত্তা বেস্টনি গড়ে তোলা হয়। গণমাধ্যমকর্মি ছাড়া অন্য কাউকে আদালত প্রাঙ্গণে প্রবেশ  করতে দেয়া হয়নি। এক পর্যায়ে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মেয়র মিরুসহ ৮ জন আসামিকে আদালতে তোলা হয়। মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা শাহজাদপুর থানার পুলিশ পরির্দশক (তদন্ত) মনির্বল ইসলাম কর্তৃক আসামীদের ৭দিনের রিমান্ড আবেদনের প্রেৰিতে এ শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। শুনানি চলাকালে আসামিদের রিমান্ড মঞ্জুরের পৰে যুক্তিতর্ক উপস’াপন করেন সিরাজগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ আদালত- ২ এর অতিরিক্ত পিপি আবুল কাশেম। এ সময় তাকে সহযোগিতা করেন এপিপি মশিউর রহমান চৌধুরী, এজিপি আবুল কাশেম সহ বাদিপৰের আইনজীবিরা। অপরদিকে, রিমান্ডের বিরোধীতা করে আসামিদের জামিন আবেদন করে  শুনানিতে অংশ নেন সিরাজগঞ্জ জেলা জজ কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট ফার্বক সরকার। উভয়পৰের শুনানি শেষে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক হাসিবুল হক জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে মামলার সুষ্ঠ তদন্ত ও ন্যায় বিচারের স্বার্থে পৌর মেয়র হালিমুল হক মির্ব সহ ৬ আসামীর  ৫ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
এদিকে একই দিন হত্যা মামলার অপর দুই আসামি মেয়রের ভাই মিন্টু ও তার গাড়ির ড্রাইভার শাহীন আলমের ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হলে আদালত পরবর্তী তারিখে তা শুনানির জন্য আদেশ দেন। অন্যদিকে ছাত্রলীগ নেতা বিজয় মাহমুদকে অপহরণ করে হত্যা চেষ্টা মামলায় মেয়র মিরুসহ অন্য আসামিদের রিমান্ড ও জামিন আবেদন করা হলে আদালত তা না মঞ্জুর করেন। রিমান্ড শুনানি শেষে রাষ্ট্র পৰের অতিরিক্ত পিপি আবুল কাশেম স’ানীয় গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে ব্রিফিংকালে এসব তথ্য জানান। পরে মেয়র মির্ব সহ অন্য আসামিদের আদালত থেকে পুলিশি হেফাজতে নেয়া হয়।
এদিকে রিমান্ড শুনানি চলাকালে নিহত সাংবাদিক শিমুল ও আহত ছাত্রলীগ নেতা বিজয় মাহমুদের স্বজনরা সহ এলাকার সর্বস্তরের শত শত বিৰুদ্ধ মানুষ আদালত চত্বরের বাইরে মেয়র মিরু, তার দুই ভাই মিন্টু ও পিন্টু সহ সকল আসামির ফাঁসির দাবিতে বিৰোভ মিছিল করে। একাত্মতা ঘোষণা করে শাহজাদপুর উপজেলা আইনজীবী সমিতির অর্ন্তভুক্ত কোন আইনজীবী আসামিদের পৰে রিমান্ড শুনানিতে অংশ নেননি। জানা গেছে, আসামিদের পৰে রিমান্ড শুনানিতে অংশ নেয়া একমাত্র আইনজীবী অ্যাডভোকেট রফিক সরকার সিরাজগঞ্জ জেলা বিএনপির আইন বিষয়ক সম্পাদক। পৌর মেয়র মিরুসহ ৬ আসামির ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর হওয়ায় শাহজাদপুরে কর্মরত সকল সাংবাদিক স্বস্তি প্রকাশ করে শিমুল হত্যা মামলাটি দ্র্বত বিচার আদালতে স’ানান্তর ও অবিলম্বে ভিডিও ফুটেজ দেখে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারের দাবি জানান। অন্যদিকে নিহত সাংবাদিক শিমুলের স্ত্রী নূর্বন্নাহার খাতুন তার প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে, তিনি আবেগ-আপৱুত কণ্ঠে বলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে একটাই দাবি এ হত্যা মামলার সকল আসামিদের অবিলম্বে গ্রেফতার ও খুনীদের ফাঁসির দাবি করেন।
উলেৱখ্য, গত ২ ফেব্র্বয়ারি মেয়র মির্বর ভাই পিন্টু ছাত্রলীগ নেতা বিজয় মাহমুদকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে মেয়রের বাড়িতে আটকে রেখে তার দুই পা ও হাত ভেঙ্গে দেয়। এ ঘটনার প্রতিবাদে এলাকাবাসী মিছিল করে মেয়রের বাড়ির সামনে গেলে মেয়র মির্ব ও তার ভাই মিন্টু মিছিলের উপর গুলি চালায়। এ সময়  ঘটনাস’লে পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে শিমুল চোখে ও মাথায় গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান। এ ঘটনায় শিমুলের স্ত্রী নূরন্নাহার খাতুন বাদি হয়ে পৌর মেয়র হালিমুল হক মির্বকে প্রধান আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করে।

Leave a Reply