প্রতিশ্রুতি দিয়ে প্রচারণা চালাচ্ছেন বাগমারার প্রার্থীরা

১৮/১০/২০১৬ ১:০২ পূর্বাহ্ণ০ commentsViews: 51

বাগমারা থেকে বিশেষ প্রতিনিধি: আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বাগমারায় পুরোদমে শুরু হয়েছে প্রচারণা। প্রতীক পাওয়ার পর থেকেই উপজেলার ১৬টি ইউনিয়নে ৬৮ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী কোমর বেঁধে মাঠে নেমেছেন। প্রার্থীরা নিজ নিজ ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় হাট-বাজারে, রাসৱা-ঘাটে, গ্রাম-গঞ্জে ও পাড়া-মহলস্নায়  ভোটারদের বাড়ি-বাড়ি গিয়ে উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন। এছাড়া প্রার্থীরা ভিন্ন ভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে লোকজনের কাছে গিয়ে ভোট প্রার্থনা করছেন। চেয়ারম্যান প্রার্থীদের পাশাপশি সংরৰিত মহিলা সদস্য ও সাধারণ সদস্য পদের প্রার্থীরাও পুরোদমে নির্বাচনি প্রচারণায় মাঠে নেমেছেন।
উপজেলার ১৬ ইউপি’র নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে এবার মোট ৬৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নেমেছেন। তারা হলেন, বাসুপাড়া ইউনিয়নে আ’লী-গের বর্তমান চেয়ারম্যান লুৎফর রহমান, বিএনপি’র জিলস্নুর রহমান ও বিএনপি’র বিদ্রোহী প্রার্থী (স্বতন্ত্র) আব্দুর জব্বার ম-ল, সোনাডাঙা ইউপি’র সাবেক চেয়ারম্যান ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি অধ্যৰ আজা-হারুল হক, ইউপির বর্তমান চেয়ারম্যান বিএনপি’র অ্যাডভোকেট মোজাফ্‌ফর হোসেন ও জাতীয় পার্টির প্রার্থী তৈহিদুল ইসলাম, গোবিন্দপাড়া ইউনিয়নে আ’লীগের উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আল-মামুন প্রামানিক, বিএনপি’র আশ-রাফুল আলম, বিএনপি’র বিদ্রোহী প্রার্থী (স্বতন্ত্র) হাবিবুর রহমান ও সিপিবি’র বাগমারা উপজেলা সভাপতি সাবেক চেয়ারম্যান বিজন সরকার, নরদাশ ইউনিয়নে আ’লী-গের অধ্যৰ গোলাম শফি কামাল বাবুল, বিএনপি’র ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল মতিন ও আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী (স্বতন্ত্র) বর্তমান চেয়ারম্যান মাস্টার আব্দুর রশীদ, ঝিকরা ইউনিয়নে বিএনপি’র বর্তমান চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান, আ’লীগের মাস্টার আব্দুল হামিদ ফৌজদার ও স্বতন্ত্র (জামায়াত) ইব্রাহিম হোসেন, যোগী-পাড়া ইউপিতে আ’লীগের মোসৱফা কামাল ও বিএনপি’র আরি-ফুল ইসলাম রনি ও আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী (স্বতন্ত্র) মাজেদুর রহমাম সোহাগ, গোয়ালকান্দি ইউ-নিয়নে আ’লীগের আলমগীর সরকার, আ’লীগের বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) আব্দুস ছালাম ও আব্বাছ আলী, জাপার নাছির উদ্দিন, স্বতন্ত্র আব্দুর রাজ্জাক, স্বতন্ত্র আফরোজা বেগম, আমজাদ হোসেন, জিতেন্দ্রনাথ ও আব্দুল লতিফ, গণিপুর ইউপিতে বিএনপি’র বর্তমান চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান রঞ্জু, আ’লীগের এস এম এনামুল হক, আ’লীগের বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) হারুন-অর রশিদ ও জাতীয় পার্টির আফছার আলী, দ্বীপপুর ইউপিতে আ’লীগের বর্তমান চেয়ারম্যান বিকাশ চন্দ্র ভৌমিক, বিএনপি’র মতিউল আলম মজনু ও আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী (স্বতন্ত্র) মকলেসুর রহমান দুলাল, কাচারী কোয়ালীপাড়া ইউপিতে বর্তমান চেয়ারম্যান বিএন-পি’র মাস্টার আব্দুল গাফ্‌ফার, আ’লীগের আয়েন উদ্দিন, জাতীয় পার্টির মোজাম্মেল হক ও বিএনপি’র বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) আব্দুস সামাদ ও আব্দুস সামাদ কালু, শ্রীপুর ইউনিয়ন আ’লীগের বর্তমান চেয়ারম্যান মকবুল হোসেন মৃধা ও বিএনপি’র আকবর হোসেন মলিস্নক, বড়বিহানালী ইউপিতে বিএনপি’র বর্তমান চেয়ার-ম্যান মাহমুদুর রহমান মিলন ও আ’লীগের রেজাউল করিম রেজা, আউচপাড়া ইউনিয়নে বিএনপি’র শাফিকুল ইসলাম সাফি, আ’লীগের সরদার জান মোহাম্মদ, আ’লীগের বিদ্রোহী শহিদুল ইসলাম ও রানা রহমান, স্বতন্ত্র (জামায়াত) প্রধান-শিৰক আসাদুলস্নাহ ও জাতীয় পার্টির আব্দুর রাজ্জাক, শুভডাঙা ইউনিয়নে আ’লীগের আব্দুল হাকিম, বিএনপি’র বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল জলিল ও জাপার আব্দুস সাত্তার, মাড়িয়া ইউপিতে আ’লীগের আসলাম আলী আসকান, বিএনপি’র রফিকুল ইসলাম ও আ’লীগের বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) আকবর আলী এবং হামির-কুৎসা ইউপিতে আ’লীগের শাখিনুর নাহার, বিএনপি’র মাস্টার রুমি আক্তার ও সাবেক চেয়ারম্যান জাপার মোহাম্মাদ আলী খামারু।
ইউপি নির্বাচনের পুনঃতফসিল ঘোষণার পর এ অঞ্চলের ভোটারদের মধ্যে দেখা দিয়েছে ভোট নিয়ে উৎসবের আমেজ। প্রতীক পাওয়ার পর থেকেই প্রার্থীরা কোমর বেঁধে মাঠে নেমেছেন নির্বাচনি প্রচারণায়। প্রার্থীরা নিজ নিজ ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় হাট-বাজারে, রাসৱা-ঘাটে, গ্রাম-গঞ্জে ও পাড়া-মহলস্নায় ভোটার-দের বাড়ি বাড়ি গিয়ে উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ভোট চাচ্ছেন এবং বিভিন্ন অনুষ্ঠানে নিয়মিত অংশ নিচ্ছেন। প্রার্থীরা সকাল থেকে গভীর রাত পর্যনৱ ভোটারদের বাড়িবাড়ি ছুটিতে শুরম্ন করেছেন। ইতোমধ্যেই প্রবীণ ও তরুণ প্রার্থীদের পদচারণায় উপজেলার প্রত্যনৱ গ্রাম-গঞ্জ ও পাড়া মহলস্ন্লা এখন সরগরম হয়ে উঠেছে।
উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, আগামি ৩১ অক্টোবর অনুষ্ঠিতব্য ইউপি নির্বাচনে বাগমারার ১৬ ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে এবার প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মাঠে নেমেছেন মোট ৬৮ জন প্রার্থী। এর মধ্যে আ’লীগের ১৬ জন, বিএনপি’র ১৬ জন, জাতীয় পার্টির ৭ জন, জামায়াত (স্বতন্ত্র) ৩ জন, কমিউনিস্ট পার্টির ১ জন ও স্বতন্ত্র ২৫ জন। এছাড়া সংরৰিত মহিলা সদস্য পদে ১৩৯ জন এবং সাধারণ সদস্য পদে ৪৪৯ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। তবে তিনটি ওয়ার্ডে কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী না থাকায় সাধারণ সদস্য পদে তিনজনকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বা-চিত বলে ঘোষণ করা হয়েছে।

Tags:

Leave a Reply