এফএনএস: রাজনৈতিক দল হিসেবে নিবন্ধনের জন্য গণসংহতি আন্দো-লনের আবেদন খারিজ হওয়ায় প্রধান নির্বাচন কমিশনারসহ তিন জনকে আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে। নোটিশে দলটির নিবন্ধনের আবেদন খারিজ কেন অবৈধ হবে না, তা জানতে চাওয়া হয়।
প্রধান নির্বাচন কমিশনার ছাড়াও আইন মন্ত্রণালয়ের সচিব ও নির্বাচন কমিশনের যুগ্ম সচিব বরাবর এই নোটিশ পাঠানো হয়েছে। গতকাল রোববার গণসংহতি আন্দোলনের সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকির পৰে ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া এ নোটিশ পাঠান। নোটিশ প্রাপ্তির সাত দিনের মধ্যে সংশিৱষ্টদেরকে নোটিশের জবাব দিতে বলা হয়েছে। তবে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নোটিশের জবাব না দিলে তাদের বির্বদ্ধে আইনগত ব্যবস’া নেওয়া হবে বলেও নোটিশে উলেৱখ করা হয়েছে।
প্রসঙ্গত, এর আগে ২০১৭ সালের ৩১ ডিসেম্বর নিবন্ধন চেয়ে নির্বাচন কমিশন বরাবর আবেদন করে গণসংহতি আন্দোলন। এ বছরের ৮ এপ্রিল নির্বাচন কমিশন থেকে বলা হয়, আবেদনে গণপ্রতিনিধিত্ব অধ্যা-দেশের দু’টি প্রবিধান পরিষ্কার করা হয়নি, ওই বিষয়ে ১৫ দিনের মধ্যে ব্যাখ্যা চাওয়া হয়। পরবর্তীতে এ দু’টি প্রবিধানের বিষয়টি ঠিক করে প্রয়োজনীয় তথ্য-উপাত্ত ২২ এপ্রিল নির্বাচন কমিশনে দাখিল করে গণসংহতি। কিন’ গত ১৯ জুন আইন অনুসারে আবেদন সঠিক হয়নি উলেৱখ করে তা খারিজ করে দেওয়া হয়।