স্টাফ রিপোর্টার: আওয়ামী লীগের উপদেষ্টাম-লির সদস্য ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা রশিদুল আলম বলেছেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা যখন আছেন তখন মুক্তিযোদ্ধারা সব সুযোগ-সুবিধা পাবেন। তাই সবাইকে এক হয়ে নৌকার পৰে কাজ করতে হবে।
গতকাল সোমবার দুপুরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজের ডা. কাইছার রহমান চৌধুরী মিলনায়তনে বিভাগের সকল জেলা, উপজেলা ও মহানগরের মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে মতবিনিময়কালে তিনি এ কথা বলেন। মুক্তিযোদ্ধা রশিদুল আলম সেখানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দিচ্ছিলেন।
মুক্তিযোদ্ধাদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, যে নৌকার জন্য একাত্তর সালে অস্ত্রহাতে যুদ্ধ করেছেন, আগামী নির্বাচনে সেই নৌকার দায়িত্ব নিতে হবে। আমাদের মধ্যে কেউ এসে যাতে বিভেদ সৃষ্টি করতে না পারে, সন্ত্রাস সৃষ্টি করতে না পারে, কারো ৰতি করতে না পারে, সে ব্যাপারে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে।
সভায় সভাপতিত্ব করেন রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এএইচএম খায়র্বজ্জামান লিটন। তিনি বলেন, বিগত সময়েও ষড়যন্ত্র হয়েছে, এখনও হচ্ছে। ষড়যন্ত্রকারীদের অভাব নেই। কিন্তু এসব ষড়যন্ত্রকারীদের ব্যাপারে সজাগ থাকতে হবে।
সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন- তথ্য ও যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, রাজশাহী-৩ আসনের সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন, নওগাঁ-১ আসনের সংসদ সদস্য সাধন চন্দ্র মজুমদার, আওয়ামী লীগের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য সচিব একেএম ফরহাদ হোসেন, সদস্য আব্দুল মোতালেব পাঠান, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য নূর্বল ইসলাম ঠান্ডু প্রমুখ।
উপস্থিত ছিলেন- মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মীর ইকবাল, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, মুক্তিযোদ্ধা ডা: আব্দুল মান্নান, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জিয়াউর রহমান, সিরাজগঞ্জের সভাপতি আব্দুল লতিফ বিশ্বাস, বগুড়ার সাধারণ সম্পাদক মজিবর রহমান, জয়পুরহাটের সাধারণ সম্পাদক সোলাইমান আলী প্রমুখ। মুক্তিযোদ্ধা র্বহুল আমিন প্রামাণিক সভা পরিচালনা করেন।
সভার শুর্বতে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, বেলুন ও পায়রা উড়ানো এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ মুক্তিযুদ্ধে শহিদ সকলের স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।