স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী সদর আসনের সংসদ সদস্য জননেতা ফজলে হোসেন বাদশা বলেছেন, আমি কোনো দিন ভাবিনি যে ছেড়ে আসার পর রাজশাহী পিটিআই সংলগ্ন (গুর্বশিৰা) পরীৰণ স্কুলটি এতো গুর্বত্বপূর্ণ হয়ে উঠবে। এই স্কুলে যদি শিৰালাভ না করতাম হয়তো কোনো দিন এতো দূর আসতে পারতাম না। এই স্কুলে যে শিৰা নিয়েছি তা আমাকে সঠিক পথে পরিচালিত করে এসেছে। আমি এই স্কুলকে কোনো দিন ভুলবো না। আমি সারাজীবন স্কুলকে সম্মান জানাই।
গতকাল শনিবার দুপুরে রাজশাহী পিটিআই সংলগ্ন পরীৰণ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীদের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
জননেতা বাদশা আরো বলেন, রাজনীতির কথা শুনলে অনেকেই ভাল-মন্দ দু’রকম চিন্তা করেন। আমি রাজনীতি করেছি মানুষের কল্যাণে। মানুষকে ভাল বেসে। বৈষম্যের কারণে সমাজের একটি অংশ বঞ্চিত হচ্ছেন। ঐ অংশের একটি অংশের শিশুরা শিৰা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। এ বৈষম্য দূর করার জন্য আমরা রাজনীতি করি। মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে এ দেশ স্বাধীনতা অর্জিত হয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের লৰ্য ছিল সমাজের বৈষম্যের অবসান ঘটানো। আমাদের সংবিধানে সেই কথা বলে। জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। আমরা অনেক দূর এগিয়েছি। সমাজের বৈষম্য দূর করতে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন করতে হবে।
জননেতা বাদশা আরো বলেন, শিশুরা যখন গড়ে উঠে তখন হয় সম্পদ। পৃথিবীতে নিত্যনতুন মূল্যবোধের জন্ম নিচ্ছে। আমাদের সঠিক শিৰা দিয়ে শিশুদের সম্পদে পরিণত করতে হবে। আর নিরাপদ সড়ক চাই-এর দাবিতে আমাদের শিৰার্থীরা আন্দোলন করে দেখিয়ে দিয়েছে যে নতুন প্রজন্মের শিৰার্থীরা ভুল পথে যায়নি।
পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কমিটির সাধারণ সম্পাদক ফজলে কবির টুটুল।
অনুষ্ঠানে পিটিআই স্কুলের সুপারিনটেনডেন্ট মুজাহেদুল ইসলামের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন শিৰা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিৰা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব জাবেদ আহমেদ, মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অধ্যৰ শফিুকুর রহমান বাদশা, সদর আসনের এমপি পত্নি অধ্যাপিকা তসলিমা খাতুন, মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল আলম বেন্টু, স্কুলের শিৰক আব্দুস সামাদ, পুনর্মিলনী উদযাপন কমিটির আলহাজ্ব রফিকুজ্জামান বেল্টু, আবুল হাসানাত, অ্যাড. ফজলে করিম মুকুল, ড.এস কে নোমান, প্রফেসর ড. লতিফুর রহমান, প্রফেসর ডা. সেলিমুজ্জামান সেলিম, ৪ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর র্বহুল আমিন টুনু, মুখলেসুর রহমান মুকুল প্রমুখ।
আলোচনা সভার পূর্বে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। র‌্যালির উদ্বোধন করেন রাজশাহী সদর আসনের সংসদ সদস্য ও অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি জননেতা ফজলে হোসেন বাদশা। র‌্যালিটি নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদৰিণ শেষে পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে এসে শেষ হয়।