প্রেস বিজ্ঞপ্তি: রাজশাহী আওয়ামী লীগে যোগ দিয়েছেন ছাত্রমৈত্রী ও যুবমৈত্রীর শতাধিক সাবেক ও বর্তমান নেতাকর্মী। রোববার সন্ধ্যায় নগরীর কোর্ট স্টেশন এলাকায় এ যোগদান অনুষ্ঠানের আয়োজন করে মহানগর আওয়ামী লীগ।
অনুষ্ঠানে যুবমৈত্রী রাজশাহী মহানগরীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ও রাজপাড়া থানার সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান বুলবুল ও ছাত্রমৈত্রীর সাবেক সহ-সভাপতি বেলাল হোসেনের নেতৃত্বে শতাধিক নেতাকর্মী ও কর্মী-সমর্থক আওয়ামী লীগে যোগদান করেন। প্রথমে মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সিটি মেয়র এএইচএম খায়র্বজ্জামান লিটনকে ফুলের তৈরি নৌকা উপহার দেন যোগদানকারীরা। এরপর মেয়র খায়র্বজ্জামান লিটন যোগদানকারীদের ফুল প্রদান করেন।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র এএইচএম খায়র্বজ্জামান লিটন বলেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নানা জোট হয়েছে, দল হয়েছে, নানান রকমের ষড়যন্ত্র হচ্ছে। সাধারণ মানুষকে বিভ্রান্ত করার জন্য সামনে শিখন্ডীর মতো দাঁড়িয়ে আছে ড. কামাল, বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী, মান্না। আর পেছনে আছে মির্জা ফখর্বল, রিজভী, সাথে জায়ামাত শিবিরও আছে।
মেয়র খায়র্বজ্জামান লিটন বলেন, এদেশের মানুষ এখন শান্তি চাই। আগুন সন্ত্রাস, জ্বালাও-পোড়াও মেনে নিবেন না। আগামীতে জ্বালাও-পোড়াও যদি কেউ করেন, তাহলে এদেশের মানুষ তার দাঁতভাঙ্গা জবাব দেবে।
মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি মেয়র খায়র্বজ্জামান লিটন আরো বলেন, সবারসহযোগিতায় চমৎকার সুন্দর নগরীর গড়তে চাই। সম্ভব। এজন্য সবার সহযোগিতা চাই। আর পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন নগরী গড়তে নিজ নিজ জায়গা থেকে সবাইকে সহযোগিতা করার আহ্বান জানাচ্ছি। আমি নির্বাচনী যে প্রতিশ্র্বতি দিয়েছে, তা বাস্তবায়ন করবো।
রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকারের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন এ্যাড. আবু রায়হান মাসুদ।
অন্যদের মধ্যে উপসি’ত ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক মীর ইশতিয়াক আহমেদ লেমন, রাজপাড়া থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ আনসার্বল হক খিচ্চু, বোয়ালিয়া থানা পূর্ব আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শ্যামল কুমার ঘোষ, ২ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি সেলিম রেজা, সাধারণ সম্পাদক নাজমুল ইসলাম ফটিক, ক্রীড়া সংগঠক সিরাজী কোয়েল প্রমুখ।