এফএনএস: কোথাও আগুন লাগলে অথবা যেকোনো দুর্যোগ মুহূর্তে ফায়ার সার্ভিস ড্রোন ব্যবহার করবে বলে জানিয়েছেন ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদফতরের মহাপরিচালক (ডিজি) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আলী আহাম্মেদ খান।
গতকাল শনিবার রাজধানীর শেরে বাংলানগরে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবস ২০১৮ উপলক্ষে তিনি এসব কথা বলেন। ফায়ার ডিজি আলী আহাম্মেদ বলেন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা আধুনিক করতেই কিছু ড্রোন ব্যবহার করা হবে। ড্রোনের মাধ্যমে কোথায় কি ধরনের ব্যবস্থা নিতে হবে তা জানা সম্ভব হবে। ফলে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ দ্র্বত জানা যাবে। ঝুঁকির মাত্রাও সঠিকভাবে জানা সম্ভব হবে ড্রোনের মাধ্যমে। ফায়ার সার্ভিসের উন্নয়ন চিত্র তুলে ধরে তিনি বলেন, বর্তমানে সারা দেশেন ৩৪৮টি ফায়ার সার্ভিস স্টেশন রয়েছে। আগামি দুই বছরে আরো ৫৪০টি ফায়ার সার্ভিস স্টেশন নির্মাণ করা হবে। সকল উপজেলাসহ প্রয়োজনীয় স্থানে স্টেশন থাকবে। আগে আমরা ৯ তলার বেশি উঁচু ভবনে আগুন নেভাতে পারতাম না। এখন ২০ থেকে ২২ তলা ভবনের আগুনও নেভানো সম্ভব হচ্ছে। অবকাঠামোগত সমস্যা তুলে ধরে আলী আহাম্মেদ বলেন, শহরে জটলা, সর্ব সড়কের কারণে অনেক সময় ঘটনাস্থলে যেতেও আমাদের বেগ পেতে হয়। এজন্য পরিকল্পিত শহর নির্মাণ করা জর্বরি। এ সময় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব শাহ কামালসহ সংশিৱষ্টরা উপস্থিত ছিলেন। এবার ‘কমাতে হলে সম্পদের ক্ষতি, বাড়াতে হবে দুর্যোগের পূর্ব প্রস্তুতি’ শীর্ষক সেৱাগানে পালিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবস।